ব্যতিক্রম ধারার ট্রেনিং সেন্টারের যাত্রা শুরু

digitalsomoy

কম খরচে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে আধুনিক টেকনোলজির জ্ঞান ছড়িয়ে দিতে এবং দেশে রোবটিক্স ও আধুনিক প্রযুক্তির ম্যানুফ্যাকচারিং প্লান্ট তৈরি করতে যাত্রা শুরু করল নতুন এক ব্যতিক্রমী ধারার ট্রেনিং সেন্টারের।  শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) রাতে মনিপুরী পাড়ায় অবস্থিত একটি অধুনিক প্রযুক্তিকেন্দ্রিক ব্যতিক্রমধর্মী ও সম্ভাবনাময় এই ট্রেনিং সেন্টারের ভার্চুয়ালি উদ্বোধন করা হয়। 

ট্রেনিং সেন্টারটি পরিচালনায় রয়েছে দুটি কোম্পানি। এ দুটি প্রতিষ্ঠান হলো যুক্তরাষ্ট্র-ভিত্তিক কোম্পানি কনফিগআরবোট  ও জাপান-বাংলাদেশ রোবটিক্স অ্যান্ড টেকনোলজি লিমিটেড।

‌এ সময় জাপান-বাংলাদেশ রোবটিক্স অ্যান্ড টেকনোলজি লিমিটেডের ফাউন্ডার ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মাদ ফারহান ফেরদৌস বলেন, প্রতিষ্ঠানটির লক্ষ্য হলো তুলনামূলক সল্প খরচে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে আধুনিক টেকনোলজির জ্ঞান ছড়িয়ে দেওয়া। 

 এই ট্রেনিং সেন্টারের মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে দেশেই রোবটিক্স ও আধুনিক প্রযুক্তির ম্যানুফ্যাকচারিং প্লান্ট তৈরি করবেন বলে জানান কনফিগআরবোটের সিইও রুদমিলা নওশীন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক আইন প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম। প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এই মহতি উদ্যোগকে তিনি সাধুবাদ জানান। সাবেক এই আইন প্রতিমন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনার সরকার সবসময় এমন মহতি উদ্যোগের সাথে রয়েছে। ডিজিটাল বাংলাদেশকে পূর্ণাঙ্গ রূপ দিতে আগামী দিনে এমন উদ্যোগ বিশেষ অবদান রাখবে বলে আমার বিশ্বাস। 

সম্মানিত অতিথি হিসেবে ছিলেন প্রধনমন্ত্রী কার্যালয়ের এনজিও বিষয়ক ব্যুরোর মহাপরিচালক (গ্রেড ১) মো. রাশেদুল ইসলাম। তিনি উক্ত প্রতিষ্ঠানটি সম্পর্কে আশাব্যাঞ্জক কথা বলেন। 

বিশেষ অতিথি হিসেবে  ‍উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ও বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এসএম মোস্তফা কামাল ও গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসক ও বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শাহিদা সুলতানা। সেই সাথে আরো  উপস্থিত ছিলেন প্রকৌশল পেশাদারদের সংগঠন ইনস্টিটিউট অব ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ার্স (আইইইই) বাংলাদেশ সেকশনের সভাপতি ও বুয়েটের অধ্যাপক ড. সেলিয়া শাহনাজ। তিনি বলেন,  বাংলাদেশের ছেলে-মেয়েরা যথেষ্ট মেধাবী হওয়ার পরেও তা কাজে লাগাতে পারছে না। এই ধরনের প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমেই প্রকৃত মেধাবীরা উঠে আসবে। 

এছাড়াও উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোবটিক্স অ্যান্ড মেকাট্রোনিক্স ডিপার্টমেন্টের অধ্যাপক ড. লাফিফা জামাল, আমেরিকার আমাজন ওয়েব সার্ভিসের সলিউশন আর্কিটেক্ট ম্যানেজার মোহাম্মাদ মাহাদী উজ জামান,  চুয়েটের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের অধ্যাপক ড. মশিউল হক, আমেরিকার ম্যাকইউডোন এডুকেশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট এন্ড সিইও ড. আফতাব উদ্দীন, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. সৈয়দ মো. গালিব, বাংলাদেশ ইনোভেশন ফোরামের ফাউন্ডার আরিফুল হাসান অপু,  দক্ষিণ কোরিয়ার কোম্পানি টিকন সিস্টেমের ফাউন্ডার অ্যান্ড সিইও এম এন ইসলাম, ইস্টওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির ইইই ডিপার্টমেন্টের সহকারী অধ্যাপক ফকির মাশুক আলগীর, আইডিইবি-এর জয়েন্ট ডিরেক্টর ইঞ্জিনিয়ার মো. মুশফিকুর রহমান ভূঁইয়া ফারুক প্রমুখ।