করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বাংলাদেশকে আরো দশ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ ৮৫০ কোটি টাকা। আজ বুধবার সরকার ও এডিবির মধ্যে এই সংক্রান্ত একটি চুক্তি সই হয়েছে।

চুক্তিতে সরকারের পক্ষে সই করেন অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সচিব ফাতিমা ইয়াসমিন। আর এডিবির পক্ষে সই করেন সংস্থাটির ঢাকা কার্যালয়ের আবাসিক পরিচালক মনমোহন প্রকাশ।

এর আগে বাজেট সহায়তার অংশ হিসেবে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে ৫০ কোটি ডলার ঋণচুক্তি করেছিল এডিবি। চুক্তি সই অনুষ্ঠানে মনমোহন প্রকাশ বলেন, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সরকার স্বাস্থ্য খাতে বেশকিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। স্বাস্থ্য খাতে বেশ কিছু চ্যালেঞ্জ রয়েছে। আমি বিশ্বাস করি, এডিবির ঋণে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য খাতের উন্নতি ঘটবে।

ঢাকার এডিবি কার্যালয় থেকে জানানো হয়েছে, ঋণের ৮৫০ কোটি টাকা দিয়ে কভিড-১৯ মোকাবেলায় যত দ্রুত সম্ভব স্বাস্থ্য সরঞ্জাম কেনা হবে। স্বাস্থ্যকর্মীদের পেশাগত দক্ষতা বাড়ানো হবে। ‘কভিড-১৯ রেসপন্স ইমার্জেন্সি অ্যাসিসটেন্স’ প্রকল্পের আওতায় ১৭টি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আইসোলেশন সেন্টার এবং আইসিইউ ইউনিট স্থাপন করা হবে। বিদ্যমান ১৯টি ল্যাবরেটরি আধুনিকায়ন করা হবে। তিন হাজার পাঁচশ স্বাস্থ্যকর্মীকে দক্ষ করে তোলা হবে। যাদের মধ্যে ৫০ শতাংশ থাকবে নারী। সম্প্রতি যেসব নার্সদের নিয়োগ দেওয়া হয়েছে, তাদেরকে দক্ষ করে তোলা হবে।

এডিবি থেকে জানানো হয়েছে, এই দশ কোটি ডলার ঋণের সুদের হার হবে দুই শতাংশ। দশ বছর গ্রেস পিরিয়ডসহ ৪০ বছরে এই ঋণ পরিশোধ করতে পারবে সরকার।

উল্লেখ্য, কভিড-১৯ মোকাবেলায় এডিবি গত ১৩ এপ্রিল যে ২০ বিলিয়ন ডলার প্যাকেজ ঘোষণা করেছে, তার অংশ হিসেবে আজ দশ কোটি ডলার ঋণচুক্তি সই হলো।

dsadmin
Author: dsadmin