দুর্নীতি, লুটপাট আর নানা অনিয়মের স্বর্গরাজ্যে পরিণত হয়েছে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি)। বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান উপাচার্য প্রফেসর ড. হারুন উর রশিদ আসকারী নিয়োগ পাওয়ার পর একের পর এক কেলেঙ্কারির ঘটনায় ইসলামী বিশ্ববিদ্যায়ের ভাবমূর্তি একেবারে তলানিতে ঠেকেছে।

অভিযোগ উঠেছে, উপাচার্যের মদদপুষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মকর্তাদের একটি চক্র গত তিন বছর ধরে নানা অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। বিশেষ করে শিক্ষক নিয়োগে ঘুষ বাণিজ্য, মেগা প্রকল্পের আড়ালে দুর্নীতি আর বিধি লঙ্ঘন করে ছাত্রলীগের সাবেক নেতা-কর্মীসহ প্রায় দুই শতাধিক লোককে ডে-লেবার হিসেবে নিয়োগ দেওয়ার ঘটনা এখন বহুল আলোচিত। শিক্ষক নিয়োগে ঘুষ বাণিজ্য বিষয়ে একাধিক ফোনালাপের অডিও ক্লিপ এখন সবার হাতে।

বর্তমান উপাচার্যের আমলে ঘটে যাওয়া সব অনিয়ম, দুর্নীতির সুষ্ঠু তদন্ত দাবির পাশাপাশি কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন শিক্ষক সংগঠন, বঙ্গবন্ধু পরিষদ ও কর্মকর্তা সমিতি থেকে শুরু করে সর্বস্তরের শিক্ষকরা। এসব সংগঠন ইতিমধ্যে লুটপাট ও অনিয়মের প্রমাণসহ প্রধানমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রী ও ইউজিসি চেয়ারম্যানের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছে। এতে উপাচার্যের নানা অনিয়ম, দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতি আর স্বেচ্ছাচারিতার বর্ণনা রয়েছে।

khalednbd
Author: khalednbd

I am Editor of Digital Somoy