‘অসাধু ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানকে আইনের আওতায় আনতে হবে’

digitalsomoy

যেসব ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান মানুষের কাছ থেকে টাকা নিয়ে পণ্য দেয় না তাদের আইনের আওতায় আনতে হবে। গত মঙ্গলবার রাতে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আলিবাবা গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান দারাজ বাংলাদেশ লিমিটেডের বিক্রেতা এবং উদ্যোক্তাদের যুগান্তকারী ডিজিটাল প্রযুক্তির সাথে সংযুক্ত করার লক্ষ্যে চতুর্থবারের মতো আয়োজিত জনপ্রিয় ইভেন্ট “দারাজ সেলার সামিট ২০২১"-এ প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমন আহ্বান জানান মেয়র আতিকুল ইসলাম।

সাম্প্রতিক সময়ে প্রযুক্তিগত ও ব্যবসায়িক প্রবৃদ্ধির ফলস্বরূপ দারাজের কার্যক্রমে যে সকল নতুন পরিবর্তন এসেছে, সে প্রসঙ্গে নিজেদের বিক্রেতাদের অবগত করাই দারাজ সেলার সামিট ২০২১ এর মূল লক্ষ্য ছিল।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন আইসিটি বিভাগের এটুআই প্রোগ্রামের হেড অব ইকমার্স রেজওয়ানুল হক জামি। প্রায় ৮০০ জন অতিথি এবারের দারাজ সেলার সামিটে অংশগ্রহণ করেন।

প্রধান অতিথি মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম তার বক্তব্যে জানান, “সাম্প্রতিক সময়ে, বিশেষত কোভিডকালে দারাজ অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে রূপ নিয়েছে। আজকের সেলার সামিটে সকলের প্রতি আমার অনুরোধ, আপনারা জনগণকে ঠকাবেন না। ব্যবসায়ীদেরকে টেকসই ব্যবসায়িক মডেলের মাধ্যমে যথাযথ পন্থায় ব্যবসায় পরিচালনা করতে হবে। যারা পণ্য ক্রয় এবং বিক্রয়ের সাথে জড়িত রয়েছেন, বাস্তবভিত্তিক এবং নৈতিক ব্যবসায় চর্চা নিশ্চিত করা আপনাদের দায়িত্ব। দারাজের মত প্ল্যাটফর্ম – যারা পণ্যের মান ও ডেলিভারির প্রশ্নে দায়বদ্ধতা দেখাতে সক্ষম – তাদেরকে সাথে নিয়েই আমাদের ই-কমার্সকে এগিয়ে নিতে হবে”।

দারাজ বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সৈয়দ মোস্তাহিদল হক বলেন, “আজকের এই আয়োজনে আমাদের সম্মানিত সেলার ও অংশীজনদের প্রাণবন্ত অংশগ্রহণ আমাকে অনুপ্রাণিত করেছে। ব্যবসায়িক একতা ও সহযোগিতার মনোভাবই দারাজের প্রাণশক্তি, যা এই চতুর্থ সেলার সামিটের সফল আয়োজনের মাধ্যমে আবারো প্রমাণিত হল। আপনাদেরকে সাথে নিয়েই আমরা আগামী বছরগুলোতে আরো এগিয়ে যেতে চাই”।

আধুনিক প্রযুক্তির সংযোজন ও সন্নিবেশনের মাধ্যমে ই-কমার্স পরিসরে বিক্রেতাগণ কিভাবে দারাজের অধীনে আরও সহজ এবং কার্যকরী উপায়ে তাদের ব্যবসায়িক কার্যাবলী পরিচালনা করতে পারেন – সে প্রসঙ্গে দারাজ সেলার সামিটের আলোচনায় জোর দেওয়া হয়। সেলার সামিটে বিশ্বের সবচেয়ে বড় সেলস ক্যাম্পেইন ১১.১১ থেকে শুরু করে দারাজ অ্যাপের নতুন সব ফিচার ব্যবহার ও দারাজের অসংখ্য উদ্যোগ নিয়ে আলোচনা করা হয়। আড়াই কোটিরও বেশি পণ্যের সমাহার নিয়ে বর্তমানে দারাজের সাথে যুক্ত আছে ৪০ হাজার বিক্রেতা এবং সহস্রাধিক ব্র্যান্ড।

মূল আলোচনার বাইরেও আমন্ত্রিত অতিথিদের জন্য এবারের দারাজ সেলার সামিটের অন্যতম আকর্ষণ ছিল জনপ্রিয় ব্যান্ড ‘জলের গান’-এর অনবদ্য সংগীত আয়োজন।