অনলাইনে সফলভাবে পণ্য বিক্রির কার্যকরি ৫ পদ্ধতি

digitalsomoy

অনলাইনে যেকোন পণ্য সফলভাবে বিক্রি করতে পারাটা হলো একটা বিশেষ গুণ বা দক্ষতা। এই দক্ষতা তারাই সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারেন, যারা বার বার এই বিভিন্ন কৌশল ব্যবহার করে অবিরাম চেষ্টা করে যান। অনেকেই আছেন যারা যেকোন কাজ খুব ভালভাবে করতে পারেন, কিন্তু অনলাইনে কোন পণ্য কীভাবে বিক্রি  করতে হয় সেটা জানেন না। এর মানে হলো, তাদের ভাল সেলস স্কিল নেই। 

আপনাকে একজন সফল উদ্যোক্তা হতে হলে ভাল মানের সেলস স্কিল থাকতেই হবে। ভাল সেলস স্কিল জানা না থাকার কারণে খুব পরিশ্রম করেও অনেকে লাভের মুখ দেখেন না। আর আপনার উদ্যোগ যদি ক্ষুদ্র বা মাঝারি হয়ে থাকে, তাহলে আপনাকে অবশ্যই এই পদ্ধতি সম্পর্কে জেনে নিতে হবে ভালভাবে। 

সেলস স্কিল ভাল থাকলে আপনি আপনার ব্যবসা খুব সহজে বড় করতে পারবেন। তাহলে চলুন, সফলভাবে পণ্য বিক্রি করার এই ৫টি পদ্ধতি সম্পর্কে জেনে নেই। 

১) সবার আগে আপনার টার্গেট মার্কেট ঠিক করতে হবে। এটার মানে হলো, কারা আপনার ক্রেতা হবে, তাদের সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া। ক্রেতা নিশ্চয়ই সবাই হবে না। একটা নির্দিষ্ট শ্রেশির মানুষ হয়ে থাকে ক্রেতা। তাদের আয়, তারা কোন পেশার এবং তাদের ভাল লাগার বিষয়গুলি নিয়ে আপনাকে ভাল ভাবে জেনে নিতে হবে। 

২) ক্রেতার কাছে পৌঁছানোর উপায় টা ঠিক করুন। ক্রেতা কারা হবে, সেটা আপনি প্রথম পয়েন্টে ঠিক করেছেন। 
এখন তাদের কাছে কিভাবে নিজের পণ্য পৌছাবেন? এখন বেশ কিছু পদ্ধতি আছে, যেগুলি কাজে দেয়। আপনার নিজ থেকে বেছে নিতে হবে, কোনটা ভাল কাজ করবে আপনার জন্য। কেউ সরাসরি ফোন কলের মাধ্যমে ক্রেতার সাথে সম্পর্ক করেন, কেউ ই-মেইল করেন, কেউ এসএমএস দেন মোবাইলে। আবার আমরা সবাই ফেসবুকে গ্রুপ বা পেজের মাধ্যমে ক্রেতার কাছে পৌঁছাচ্ছি। 

৩) ক্রেতাকে প্রশ্ন করুন। জ্বি, ঠিকই বলেছি। আপনি ক্রেতার সাথে কথা বলার আগেই কিছু প্রশ্ন ঠিক করে নিবেন যেগুলি আপনি তাদের সাথে কথা বলার সময়ে জিজ্ঞাসা করবেন। প্রশ্ন গুলি করলে যেটা হবে, আপনি খুব ভালভাবে ক্রেতার চাহিদা বা কিসে তাদের সমস্যা, সেই সম্পর্কে বিশদভাবে ধারণা আপনার হবে। আমরা অনেকেই যে ভুল করি, সেটা হলো, ক্রেতার সাথে কথা বলার সময়ে নিজেদের পণ্য নিয়ে বেশি কথা বলার চেষ্টা করি। গুণগান গাইতে থাকি। অথচ ক্রেতার কি ধরনের চাহিদা, সেটা ভাবা লাগবে সবার আগে। 

৪) যেভাবে প্রতিশ্রুতি বা কথা দিয়েছেন, ঠিক সেভাবেই পণ্য দিতে হবে। আপনি বলেছেন এক রকম, পরে যেন অন্য রকম না হয় বা অন্য রকমভাবে ক্রেতা যাতে না পান। মোট কথা, কোনভাবেই কথার হেরফের হওয়া যাবে না। প্রতিশ্রুতি ঠিক ভাবে রাখতে পারলে আপনি সেল বাড়াতে পারবেন অনেকখানি। 

৫) যে পদ্ধতিতে আপনি বিক্রি করছেন, সেটা ঠিক আছে কিনা দেখে নিবেন কিছু দিন পর পর। ধরে নিলাম, আপনি বেশ ভাল বিক্রি করছেন। কিন্তু এখন কথা থেকে যায় যে, আপনি যে পদ্ধতিতে বিক্রি করছেন, সেটা কি সঠিক আছে? যদি সেটার ভেতর ভুল থাকে, তাহলে এই পদ্ধতি এখন কাজে দিলেই ভবিষ্যতে দিবে না। তাই কিছু দিন পর পর নিজের পদ্ধতিটা চেক করে নিতে হবে। এই পদ্ধতি ব্যবহার করে আপনি কতটুকু সফল হয়েছেন বা কত অংশ কাজ করে নাই, কি করলে আরও ভাল করা যাবে, এই সব কিছু আপনাকে জানতে হবে। 

উপরের এই পাঁচটা পদ্ধতি যদি আমরা কাজে লাগাতে পারি, তাহলে সেল নিয়ে আমাদের দুশ্চিন্তা অনেক খানি কমে যাবে।

লেখক : মো. মোস্তাফিজুর রহমান খান, প্রতিষ্ঠাতা ও স্বত্বাধিকারি, অনলাইন প্লাটফর্ম ‘সুরমা শপ’।