সাইবার জগতে নারীর নিরাপত্তা নিশ্চিতের তাগিদ 

digitalsomoy

তথ্যপ্রযুক্তির এই যুগে আগের তুলনায় প্রযুক্তি সেক্টরে নারীদের অংশগ্রহণ বাড়ছে। তবে প্রযুক্তির ব্যবহার দিন দিন বাড়তে থাকায় নারীরা এ সেক্টরে সাইবার বুলিংয়ের শিকার হচ্ছে বেশি। নারীদের ইন্টারনেট জগতে নিরাপদ রাখতে পারলে প্রযুুক্তি সেক্টরে তাদের অংশগ্রহণ আরো বাড়বে।  

বুধবার (২৮ এপ্রিল) এটুআই এবং প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের আয়োজনে ‘ডিজিটাল অ্যান্ড ইকোনমিক ইমপাওয়ারমেন্ট অব গার্লস অ্যান্ড ইয়াং ওম্যান থ্রো আইসিটি’ শীর্ষক এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে এমনটা মত ব্যক্ত করেন আইসিটি খাত সংশ্লিষ্টরা।

আইসিটি বিভাগের ডেপুটি সেক্রেটারি হাসিনা বেগম বলেন,  নারীরা ইন্টারনেট জগতে নিরাপদ না হতে পারলে প্রযুক্তি সেক্টরে তাদের অংশগ্রহণে আগ্রহ কমবে। দেশের ইন্টারনেট জগতকে যতদিন নিরাপদ করা না যাবে ততদিন এ সেক্টরে নারীর অংশগ্রহণ বাড়বে না। পরিবারও তাদের আগ্রহ দেখাবে না নারীরা এ সেক্টরে আসুক। সাইবার জগত নিরাপদ রাখতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

পরিবার এবং সন্তান সবাইকে সাইবার বুলিংয়ের ধারণা দিতে হবে জানিয়ে আন্তর্জাতিক শিশু শান্তি পুরস্কার প্রাপ্ত সাদাত রহমান বলেন, শহরের মেয়েরা সব কিছুর সুযোগ-সুবিধা পেয়ে থাকেন, তারা সাইবার বুলিং সর্ম্পকে ভালো ধারণা রাখে, কিন্তু সবচেয়ে বেশি সমস্যা গ্রামে। তারা সাইবার বুলিংয়ের শিকার হলে কোথাও যেতে পারেন না। পরিবারকেও সাইবার বুলিং নিয়ে ভালো ধারণা দিতে হবে। কেউ বুলিংয়ের শিকার হলে তার পাশে সবাইকে দাঁড়াতে হবে। তাকে মোটিভেটেড করতে হবে।

নারী উদ্যোক্তাদের জনপ্রিয় অনলাইন প্লাটফর্ম উম্যান অ্যান্ড ই-কমার্স (উই) এর প্রেসিডেন্ট নাসিমা আক্তার নিশা বলেন, আইসিটি সেক্টরে নারীদের অংশগ্রহণ বাড়াতে প্রচার-প্রচারণার দিকে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। যত প্রচার হবে তাদের সচেতনতা ততই বাড়বে।

গুগল ডেভেলপার গ্রুপের ম্যানেজার রাখশান্দা রুখামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, উইমেন ইন ডিজিটালের প্রতিষ্ঠাতা আছিয়া নিলা।